কিশোরীদের অনিয়মিত ঋতুস্রাবের কারণ ও প্রতিকার


ঋতুচক্র প্রতিটি মেয়ের জীবনে খুব স্বাভাবিক ঘটনা। একজন দশ বারো বছর বা তার অধিক বয়সী মেয়েকে প্রতিমাসে ঋতুচক্রের মতো স্বাভাবিক ঘটনার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। প্রতি মাসের নির্দিষ্ট সময়ে ঋতুস্রাব হওয়া স্বাস্থ্যকর। তবে অনেক মেয়েদের ঋতুচক্র অনিয়মিতভাবে হয়। অনিয়মিত ঋতুচক্র সবসময় স্বাভাবিক হয় না।

কিশোরী; ছবিসূত্রঃ Mommyasia

অনেক সময় হরমোনজনিত কারণ, অপরিণত ও অনিচ্ছাকৃত গর্ভধারণ, মানসিক চাপ, অনিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন ও খাদ্যাবস্থা ইত্যাদির কারণে অনিয়মিতভাবে ঋতুচক্রের ভেতর দিয়ে যেতে হয়। কিশোরীরা এই সময়ে খুব বিষণ্ন থাকে। কারণ অজানা কারণে তার স্বাস্থ্যঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে। আপনি যদি আপনার অস্বাভাবিক ও অনিয়মিত ঋতুচক্র সম্পর্কে চিন্তিত থাকেন তাহলে নিম্নোক্ত লেখাটি আপনার জন্য।

যে সময়ে মেয়েদের ঋতুচক্র ঘটে

সাধারণত দশ থেকে পনেরো বছর বয়সী মেয়েদের ঋতুচক্র হয়ে থাকে। এটি খুব সাধারণ একটি ঘটনা। সব মেয়ের একই বয়সে ঋতুচক্র হয় না। প্রতিটি মেয়ের স্বাস্থ্য ও দৈহিক বৃদ্ধির উপর অনেক কিছু নির্ভর করে। কোনো কোনো মেয়ের দশ বছরে ঋতুচক্র শুরু হলেও কারো কারো ষোলো বছরেও হয়। এ নিয়ে চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই।

ঋতুচক্র কী? কীভাবে দিন গণনা করতে হয়?

অধিকাংশ চিকিৎসকগণ মনে করেন, প্রতি ২৮ দিন পর পর ঋতুচক্র বা ঋতুস্রাব হওয়া স্বাভাবিক। তাই ঋতুচক্র শেষ হওয়ার পর দিন থেকে পরবর্তী ঋতুচক্র শুরুর পূর্ব পর্যন্ত সময় গণনা করতে হবে। প্রতি মাসে কোন সময়ে ঋতুচক্রের মধ্যে দিয়ে যেতে হয় তা মনে রাখা জরুরী। এই ব্যাপারে মাকে সচেতন থাকতে হয়। মেয়ের ঋতুচক্রের তারিখ গণনা করা মায়ের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে।

অনিয়মিত ঋতুস্রাব কী কিশোরীদের জন্য স্বাভাবিক?

ঋতুচক্র শুরু হওয়ার পর থেকে প্রতিমাসে একই সময় হবে তা বলা যায় না। কখনো কখনো সময় পরিবর্তিত হতে পারে। ২৮ দিন শেষ হওয়ার আগে কিংবা পরে ঋতুচক্র হতে পারে। তা নিয়ে অতিরিক্ত ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

অনিয়মিত ঋতুচক্র স্বাভাবিক

কিশোর বয়সে একজন মেয়ের অনিয়মিত ঋতুচক্র হতে পারে। এতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। প্রথমবার ঋতুচক্রের পর দ্বিতীয়বারের ঋতুচক্র দুই মাস পরেও হতে পারে। এটি অনেকের হয়ে থাকে। তবে দীর্ঘদিন এমনভাবে চলতে থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

প্রতি তিন মাস পর পর চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত

একজন কিশোরী যখন প্রথম প্রথম ঋতুচক্রের মধ্যে দিয়ে জীবন অতিবাহিত করে তখন তার মানসিক অবস্থা, শারীরিক অবস্থা ভালো থাকে না। সে বিষয়টা নিয়ে অনেকটা জ্বালাতনের মধ্যে থাকে। তাই মায়ের উচিত সন্তানের ঋতুচক্রের খোঁজ খবর রাখা এবং প্রতি তিন মাস পর পর তাকে নিয়ে চিকিৎসকের কাছে যাওয়া। অনিয়মিত ঋতুচক্র হলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

চিকিৎসক এবং কিশোরী; ছবিসূত্র: HuffPost

দেহের ভেতরে অন্য কোনো সমস্যা থাকলে তা রিপোর্টে ধরা পড়ে। শুরুতেই চিকিৎসা নিলে সম্পূর্ণ রকম সুস্থ হওয়া যায়। তাছাড়া বয়ঃসন্ধিকালে ঋতুচক্রের তারিখ মাঝে মাঝে  পরিবর্তিত হতে পারে। কোনো একমাসে তিন দিন স্থায়ী হলেও অন্য মাসগুলোতে পাঁচ দিন কিংবা সাতদিন স্থায়ী হতে পারে।

হরমোনাল পরিবর্তনের কারণে রক্তপ্রবাহে পরিবর্তন হতে পারে

কিশোরীর শরীরের বৃদ্ধি ঘটতে থাকলে নানা ধরনের হরমোনাল পরিবর্তন হতে থাকে। হরমোনজনিত কারণে রক্তপ্রবাহ কম বা বেশি হতে পারে। হরমোনাল পরিবর্তনের সাথে সাথে শারীরিক অনেক কিছুর পরিবর্তন ঘটবে।

বিষণ্ন কিশোরী; ছবিসূত্র: Endometriosis & Pelvic Pain Center

ঋতুচক্রের সময়, অবস্থা, রক্তপ্রবাহ কমতে পারে আবার বাড়তে পারে। তাই এটি নিয়ে চিন্তিত না হয়ে সচেতন থাকুন।

সন্তানের অনিয়মিত ঋতুচক্রের কোন অবস্থায় চিকিৎসকের সাথে কথা বলা উচিত?

সন্তানের অনিয়মিত ঋতুচক্র হলে মায়েদের শঙ্কা বেড়ে যাওয়া স্বাভাবিক। জেনে নিন, কোন অবস্থায় সন্তানকে নিয়ে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবেন তা সম্পর্কে।

১. আপনার সন্তানের ঋতুচক্র যদি পরপর দুই মাস কিংবা তিন মাস না হয় তাহলে তাকে নিয়ে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যান। কারণ হতে পারে আপনার সন্তানের কোনো কঠিন রোগ হয়েছে অথবা জরায়ু কিংবা অন্য কোনো অঙ্গে কিছু একটা হয়েছে। চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করলে সঠিক সমাধান পেয়ে যাবেন।

২. যদি তিন মাসের মধ্যে একবার আপনার সন্তানের ঋতুচক্র হয়, তাহলে বুঝবেন তার হরমোনাল কোনো সমস্যা রয়েছে। তাই চিকিৎসকের সাহায্য নিন। যেকোনো সমস্যায় চিকিৎসকের সাহায্য নিলে দ্রুত সমাধান করা যায়।

কিশোরীদের অনিয়মিত ঋতুচক্রের কারণ

হরমোনাল কিছু কারণ ছাড়াও আরো কিছু কারণে অনিয়মিত ঋতুচক্র হয়ে থাকে। যেমন:

যৌনসঙ্গম ও গর্ভধারণ

একজন কিশোরী যদি ইচ্ছাকৃত কিংবা অনিচ্ছাকৃত যৌনসঙ্গম করে থাকে তাহলে না বুঝেই গর্ভধারণ করতে পারে। কিশোরী যদি গর্ভধারণ করে তাহলে ঋতুচক্র বন্ধ হয়ে যাবে। নিরাপদ ব্যবস্থা নিয়ে যৌনসঙ্গম করলেও অপরিণত গর্ভধারণ হতে পারে। কিশোরী যদি জন্ম নিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেট খায় তাহলে তার অনিয়মিত ঋতুচক্র হতে পারে।

অতিরিক্ত ব্যায়াম

ব্যায়াম স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। তবে অতিরিক্ত ব্যায়াম স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। অতিরিক্ত ব্যায়াম, খেলাধুলা ইত্যাদির কারণে অনিয়মিত ঋতুচক্র হতে পারে। প্রতিদিন অতিরিক্ত শারীরিক পরিশ্রম ও ব্যায়াম করলে ঋতুচক্রের সময় রক্তপ্রবাহ কম কিংবা বেশি হতে পারে।

কিশোরীদের ব্যায়াম; ছবিসূত্র: Women’s Health Queensland Wide

আবার দেখা যাবে ঋতুচক্র পাঁচ দিনের বদলে সাত দিন বা তার বেশি দিন স্থায়ী হতে পারে। অতিরিক্ত ব্যায়াম ও অনুশীলনের কারণে যদি ঋতুচক্রের ব্যাঘাত ঘটে তাহলে ভয় পাবেন না। ব্যায়াম ও অনুশীলন কমিয়ে দিলে ঠিক হয়ে যাবে।

মানসিক চাপ

আপনার সন্তান যদি পড়াশুনা, প্রোজেক্টস, বাড়ির কাজ নিয়ে মানসিক চাপে থাকে তাহলে তার অনিয়মিত ঋতুচক্র হতে পারে।

অতিরিক্ত মানসিক চাপ; ছবিসূত্র: MomJunction

অতিরিক্ত মানসিক চাপ শারীরিক ও মানসিক ক্ষতি করে। তাই সন্তানকে প্রফুল্ল ও হাসিখুশি রাখার চেষ্টা করুন।

অনিয়ন্ত্রিত খাদ্য

অনেক কিশোরীরা অনিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন করে এবং তারা অনিয়ন্ত্রিত খাবার খায়। পুষ্টিকর খাবারের বদলে ফাস্ট ফুড, জাঙ্ক ফুড খায়। শরীরে পুষ্টির অভাব থাকলে, রক্তস্বল্পতা থাকলে অনিয়মিত ঋতুচক্র হতে পারে।

 

ফিচার ইমেজ সোর্স: Health Magazine

 

 

Rikta Richi

রিক্তা রিচির জন্ম ৮ ই নভেম্বর ১৯৯৫ সালে বি বাড়ীয়ার নবীনগর থানার নবীপুর গ্রামে। ছোট থেকে ঢাকায় বসবাস। ২০১০ সালে মোহাম্মদপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় থেকে এস এস সি এবং ২০১২ সালে বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হোম ইকোনোমিকস কলেজের “সম্পদ ব্যবস্থাপনা ও এন্ট্রাপ্রেনরশীপ” বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। রিক্তা রিচি কবিতা লিখতে ভালবাসেন। নিয়মিত লিখছেন বাংলাদেশের বিভিন্ন ম্যাগাজিন, পত্রিকা ও জাতীয় দৈনিকে এবং ভারতের বিভিন্ন ম্যাগাজিন ও পত্রিকায়। ২০১৬ সালের একুশে বইমেলায় প্রকাশিত হয় তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ “যে চলে যাবার সে যাবেই”। ২০১৯ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত হয় তার দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ "বাতাসের বাঁশিতে মেঘের নূপুর"।

Comments 0

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like

More From: লাইফস্টাইল

DON'T MISS