শিশুদের মানসিক চাপের কারণ এবং প্রতিকার


আপনি কী বাড়ন্ত সন্তানের সাথে খেলতে গিয়ে কখনো তাকে বিষন্ন দেখেছেন? তার আচার-আচরণে বিরক্তির লক্ষণ প্রকাশ পেতে দেখেছেন? অথবা তার দৈনন্দিন রুটিন পরিবর্তন করতে দেখেছেন?

Source: Parenting

হয়তো দেখেছেন। কিন্তু সন্তানের এই বিষন্নতা বা আচার-আচরণের বিরক্তি দূর করার জন্য কোনো পদক্ষেপ নিয়েছেন কী? আসলে বেশিরভাগ অভিভাবক জানে না সন্তানের বিষণ্ণতা, আচার আচরণের পরিবর্তন এবং বিরক্তির আসল কারণ কী?

দৈনন্দিন জীবনে আমরা যেমন নানা ঘটনা এবং পারিপার্শ্বিকতায় মানসিক চাপ অনুভব করি, তেমনি শিশুরাও নানা কারণে মানসিক চাপে থাকতে পারে। শিশুরা মানসিক চাপে থাকলে তার মধ্যে এই বিশেষ আচরণগত পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়।

অত্যধিক চাপ ডায়াবেটিস, হাঁপানি, বিষণ্ণতা, উদ্বেগ, উচ্চ রক্তচাপ এবং এমনকি প্রাপ্তবয়স্কদের হৃদরোগের কারণ হতে পারে। সুতরাং শিশুরাও এই ঝুঁকির বাইরে নয়।

শিশুর মানসিক চাপের কারণ

চাপ এক ধরনের মানসিক প্রতিক্রিয়া যা বিভিন্ন ঘটনার প্রেক্ষিতে সৃষ্টি হয়, বিশেষ করে এমন সব ঘটনা যা ব্যক্তির ক্ষমতা এবং অবস্থানকে চ্যালেঞ্জ করে। তাই পরিবার বা পারিপার্শ্বিক যেকোনো ঘটনা ও উৎস থেকে মানুষের মধ্যে মানসিক চাপ সৃষ্টি হতে পারে। যেমন : বন্ধু, পরিবার, সহকর্মী অথবা পারিপার্শ্বিক যেকোনো ঘটনা বা বিষয়। শিশুদের মানসিক চাপ সৃষ্টি হয় মূলত স্কুল, বন্ধু, পরিবার, শিক্ষক, এমনকি প্রতিবেশীর দ্বারা।

Source: Mom Junction

বাড়ন্ত এবং স্কুলগামী শিশুদের মানসিক চাপ সৃষ্টি হওয়ার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি কারণ আছে। এই নিবন্ধে শিশুর মানসিক চাপ সৃষ্টি করা এমন কিছু কারণ আলোচনা করা হলো। আপনার শিশু মানসিক চাপে আছে কিনা তা বোঝার জন্য নিম্নে আলোচিত বিষয়গুলো লক্ষ্য করুন।

পিতামাতার থেকে বিচ্ছিন্নতা

পিতামাতা এবং অভিভাবক থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার ভয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রবেশকালে শিশুরা নানা রকম চাপে থাকে। ফলে শিশু উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। অনেক অভিভাবক সন্তানের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়াশোনা শেষ হওয়ার আগেই আবাসিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি করে। এই আবাসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে ইংরেজি মাধ্যম স্কুল, জেলা এবং বিভাগীয় শহরের আবাসিক স্কুল, এবং কিছু ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

শিশুরা হঠাৎ করে পরিবার বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়লে সামাজিক নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে। যার ফলে তার মনে নানান সংশয় এবং উদ্বিগ্নতা সৃষ্টি হয়।

সামাজিক চাপ

শিশুরা নানা কারণে সামাজিক চাপ অনুভব করতে পারে। বিশেষ করে বিদ্যালয়গামী ছেলেমেয়েরা এই সমস্যায় বেশি পড়ে। যেহেতু তারা শিশু, তাই পারিপার্শ্বিক সব ঘটনা এবং পরিবেশ তার জন্য উপযুক্ত নয়।

Source: RGB Stock

কিন্তু সিংহভাগ অভিভাবকের পক্ষে সন্তানের জন্য ঘরে বাইরে সমান পরিবেশ সৃষ্টি করা সম্ভব হয় না। ফলে বাইরের পরিবেশের নানা অসামঞ্জস্যতা শিশুর মনে মানসিক চাপ সৃষ্টি করে। এমনকি প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উপযুক্ত বা তার চেয়েও কম বয়সী ছেলেমেয়েরা নানারকম সামাজিক চাপে থাকে।

পারিবারিক জীবন

শিশুর মানসিক চাপ সৃষ্টি হওয়ার পেছনে যত কারণ থাকতে পারে তার মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য এবং গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো শিশুর পারিবারিক জীবন। বাড়ির পরিবেশ শিশুর আচরণ এবং অভ্যাস সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এমনকি শিশুর যথাযথ মানসিক বিকাশ প্রায় সম্পূর্ণরূপে নির্ভর করে সুন্দর পারিবারিক পরিবেশের ওপর।

সুতরাং শিশুর জন্য নির্মল পারিবারিক পরিবেশ সৃষ্টি করতে ব্যর্থ হলে শিশু ভয়ানক মানসিক চাপে থাকে। যার ফলে তার মধ্যে অদ্ভুত আচার আচরণ প্রকাশ পায়। এমনকি শিশু মানসিকভাবে বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে।

Source: Every day Family

বাড়ির আতঙ্কজনক পরিবেশ, যেমন পিতামাতার মধ্যে ঝগড়া, বিবাহ বিচ্ছেদ, পরিবারের কোনো মানুষের দুরারোগ্য অসুস্থতা, পরিবারের কোনো সদস্যের মৃত্যু, পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে কলহ, প্রতিবেশীর সাথে ঝগড়া, অর্থনৈতিক সমস্যা ইত্যাদি কারণে মূলত শিশুর মানসিক চাপ বৃদ্ধি পায়।

পিতামাতা ও অভিভাবকের অসহযোগিতা

অনেক পরিবার সন্তানের মানসিক যত্নের ব্যাপারে অমনোযোগী। অথচ শিশুদের বাড়ন্ত বয়সে নানা রকম প্রত্যাশা এবং আবদার থাকে। প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের কাছে শিশুর এই প্রত্যাশা বা আবদার মূল্যহীন হতে পারে, কিন্তু শিশুর কাছে তা মহামূল্যবান। এ অবস্থায় শিশুরা যদি নিজের প্রত্যাশা পূরণে পরিবারের কাছ থেকে সহযোগিতা না পায়, তাহলে শিশুর মধ্যে ভয়ানক মানসিক চাপ সৃষ্টি হয়।

আবার সব শিশুর শারীরিক ও মানসিক বিকাশ সমান হয় না। তাই শিশুরা পরিবার, অভিভাবক এবং পিতামাতার কাছ থেকে বিশেষ যত্ন আশা করে। এ অবস্থায় যদি শিশুরা পরিবারের পক্ষ থেকে সহযোগিতার অভাববোধ করে, তাহলে তার মধ্যে বিষণ্ণতা এবং উদ্বেগ সৃষ্টি হয়।

অন্যান্য কারণ

উপরিউক্ত কারণগুলো ছাড়াও শিশুর মানসিক চাপ সৃষ্টি হওয়ার জন্য আরো অনেকগুলো কারণ আছে। যেমন : পারিবারিক বিনোদন। আপনার পরিবারের সদস্যরা শিশুকে সাথে নিয়ে টেলিভিশনে কেমন অনুষ্ঠান দেখে তার উপর নির্ভর করে শিশুর মানসিক অবস্থা কেমন থাকবে। যুদ্ধ, হানাহানি এবং ভীতিকর সংবাদ ও অনুষ্ঠানসহ শিশুর কোমল মানসিকতার সাথে সাংঘর্ষিক এজাতীয় যেকোনো কিছু শিশুর মনে চাপ সৃষ্টি করতে পারে।

Source: Baby Sitting Jobs

আপনার শিশুকে চাপমুক্ত রাখতে এবং সঠিক শারীরিক মানসিক বিকাশ নিশ্চিত করতে উপরে আলোচিত বিষয়গুলো গভীর মনোযোগের সাথে পর্যবেক্ষণ করুন এবং দ্রুত সমাধানের চেষ্টা করুন।

বাড়িতে শিশু সন্তান থাকলে তার প্রতি বিশেষ মনোযোগী হোন। সকল পারিবারিক দ্বন্দ্ব-সংঘাত মিটিয়ে প্রতিবেশী এবং আত্মীয় স্বজনের সাথে আত্মিক সম্পর্ক উন্নয়ন করুন।

বাড়ির পরিবেশ যতটা সম্ভব নির্মল এবং হাসিখুশিতে পরিপূর্ণ রাখুন। সম্ভব হলে শিশুর বিদ্যালয়ে যাতায়াতের পথ এবং বন্ধু বান্ধবের আচার আচরণ পর্যবেক্ষণ করুন। মনে রাখবেন শৈশবে আপনার সন্তানকে যেমন পরিবেশ উপহার দিবেন ভবিষ্যতে আপনার সন্তান তেমন মানুষ হয়ে গড়ে উঠবে।

Feature Image: Mom Junction

মোস্তাফিজুর রহমান
তরুণ কথাসাহিত্যিক, কলামিস্ট এবং সাংবাদিক মোস্তাফিজুর রহমানের জন্ম ও বেড়ে ওঠা দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমের জেলা যশোরে। পৈতৃক নিবাস যশোরের সদর থানার খোজারহাট গ্রামে। বাবা-মায়ের তিন সন্তানের মধ্যে মোস্তাফিজুর রহমান সবার বড়। লেখাপড়া করেছেন যশোরের খোজারহাট মাধ্যামিক বিদ্যালয়, ছাতিয়ানতলা চুড়ামনকাঠি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ডা: আব্দুর রাজ্জাক মিউনিসিপ্যাল কলেজ এবং ঢাকার ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে। বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার প্রকৌশল নিয়ে পড়াশোনা করলেও আত্মনিয়োগ করেছেন সাহিত্য সাধনা এবং সাংবাদিকতায়। শিল্প-সাহিত্যের প্রতি তীব্র অনুরাগী মোস্তাফিজুর রহমান স্কুল জীবন থেকেই লেখালেখি করেন। বাংলাদেশ ও কলকাতার সাহিত্য পত্রিকা, দৈনিক এবং ম্যাগাজিনে লিখে থাকেন। এছাড়া জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয় নিয়ে দৈনিক পত্রিকায় কলাম লেখেন নিয়মিত। ২০০৯ সাল থেকে সাংবাদিকতার সাথে জড়িত, একটি অনলাইন পত্রিকা সম্পাদনাসহ কাজ করেছেন বিভিন্ন পত্রিকায়। সাম্প্রতিককালে তারুণ্য, শিল্প-সাহিত্য, চলচ্চিত্র এবং ট্রেন্ডিং বিষয় নিয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইউটিউবে আলোচনা করেন। ইউটিউব সহ সকল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মোস্তাফিজুর রহমানকে @MustafizAuthor ইউজারে খুঁজে পাওয়া যাবে। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে তার প্রথম গল্পগ্রন্থ ‘দ্বন্দ ও পথের খেলা’ প্রকাশিত হয়।

Comments 0

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like

More From: শিশুর যত্ন

DON'T MISS